Advertisement

ইসলামী ব্যাংক থেকে লোন নেওয়ার পদ্ধতি জানুন | Bank Loan

বর্তমানে প্রায় সকলের নিকট জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে ইসলামী ব্যাংক থেকে লোন নেওয়া পদ্ধতি। আপনি যদি ইসলামী ব্যাংকের গ্রাহক হয়ে থাকেন এবং ইসলামী ব্যাংক থেকে লোন নিতে চান। তাহলে সম্পূর্ণ লেখা ভালো ভাবে পড়ুন।

ইসলামী ব্যাংক থেকে লোন নেওয়ার পদ্ধতি জানুন

প্রতিটি ব্যাংকেরই লোন দেওয়ার কিছু নিয়ম কানুন রয়েছে। অন্যান্য ব্যাংকের মতো এতো সহজেই ইসলামী ব্যাংক থেকে লোন নিতে পারবেন না।

আপনি প্রতি মাসে কত টাকা ইনকাম করেন তার ওপর ভিত্তি করে আপনাকে লোন দেয়া হবে। মাসিক আয় যত বেশি হবে লোনের পরিমানও ততো বেশি নেওয়া যাবে।

আরো একটি কথা ইসলামী ব্যাংক (লোন) শব্দটিকে ইসভেস্টমেন্ট নাম দিয়েছে।

ইসলামী ব্যাংক থেকে লোন নেওয়া যাবে?

হ্যাঁ, আপনি ইসলামী ব্যাংক থেকে লোন নিতে পারবেন। ইসলামী ব্যাংক আপনাকে ব্যবসা করার জন্য আপনাকে লোন দিবে। 

তবে আপনি সরাসরি ইসলামী ব্যাংকে গিয়ে লোনের কথা বললেই। তারা আপনাকে লোন দিয়ে দিবে না। আপনি লোন নিয়ে সেটা দিয়ে কি করবেন তাদেরকে আগে সেটা বুঝাতে হবে।

ইসলামী ব্যাংকের লোন নেওয়ার বেশ কিছু ক্যাটাগরি রযেছে।

১. হোম লোন
২. উদ্যোক্তা লোন
৩. বাণিজ্য লোন
৪. কৃষি লোন
৫. রিয়েল স্টেট লোন
৬. ফ্রিলাসিং লোন

এসব ক্যাটাগরিতে গ্রাহকেরা ইসলামী ব্যাংক থেকে লোন নিতে পারবেন।

ইসলামী ব্যাংক থেকে লোন নেওয়ার পদ্ধতি

ইসলামী ব্যাংক তাদের গ্রাহকদের নানানা ভাবে সুবিধা দিচ্ছে। আর মধ্যে একটি হলো ইসলামী ব্যাংক থেকে লোন নেওয়া। চলুন এখন জেনেই ইসলামী ব্যাংক থেকে লোন নেওয়ার পদ্ধতি সম্পর্কে।

  • সর্ব প্রথম আপনার ইসলামী ব্যাংকের একজন গ্রাহক হতে হবে।
  • ইসলামী ব্যাংক থেকে লোন নিতে আপনার বয়স কমপক্ষে ১৮ বছরের বেশি হতে হবে।
  • এর পর আপনার মাসিক আয়ের ডকুমেন্ট নিয়ে নিকটস্থ কোনো ব্রাঞ্চে যেতে হবে।
  • প্রতি মাসে যদি আপনার আয় ২৫ টাকা হয়ে থাকে সে ক্ষেত্রে আপনি ৫ লক্ষ টাকার মতো লোন নিতে পারবেন।

ইসলামী ব্যাংকে ইন্টারেস্ট হলো ৭.৬০ শতাংশ।

ইসলামী ব্যাংকের লোনের পরিমান

আপনি যদি বাড়ি তৈরির জন্য লোন নিতে চান তাহলে তার জন্য ১৬% রিটার্ন রেট প্রযোজ্য হবে। আর আপনাকে এই ইনভেস্টমেন্ট তিন বছরের জন্য দেওয়া হবে।

বিভিন্ন স্থান ভেদে এই লোনের পরিমানও ভিন্ন হয়ে থাকে।

মহানগর শহরের জন্য: প্রায় ২৫ কোটি টাকা।

জেলার ও অঞ্চলের জন্য: ১কোটি টাকার মতো।

তবে একটা কথা মনে রাখতে হবে ইসলামী ব্যাংক আপনাকে সরাসরি টাকা দিবে না। আপনি যদি বাড়ি তৈরির জন্য তাদের থেকে লোন নিতে চান। তাহলে আপনাকে রড, সিমেন্ট, বালু এসব সামগ্রী দিবে। যা দ্বারা আপনি বাড়ি তৈরি করবেন।

ইসলামী ব্যাংকের কৃষি লোন পদ্ধতি

এ পদ্ধতিতে ব্যাংক আপনাকে ফসলি জমিতে চাষ করার জন্য কোনো টাকা দিবে না। চাষ করার জন্য আপনার যে সব উপাদান প্রয়োজন হবে। ব্যাংক আপনাকে সে গুলো দিবে।

এই লোন নিতে যে ডকুমেন্ট প্রয়োজন হবে

১. জাতীয় পরিচয় পত্র
২. জমির প্রয়োজনীয় কাগজপত্র

ছোট ব্যবসার জন্য ঋণ নেওয়ার পদ্ধতি

এই ঋণ নেওয়ার জন্য আপনার বয়স সর্বনিম্ন ২১ এবং সর্বোচ্চ ৬৫ বছরের মধ্যে হতে হবে। ঋণ নেওয়া আগে অবশ্যই মনে রাখতে হবে ইসলামে জায়েজ না এমন কোন ব্যবসার জন্য ইসলামী ব্যাংক লোন দিবে না। ছোট ব্যবসা জন্য পাঁচ থেকে তিন লক্ষ টাকা পর্যন্ত ঋণ দিয়ে থাকে। এর ইন্টারেন্ট হার ১২ শতাংশ পর্যন্ত।

এই ঋণের জন্য যা যা লাগবে

১.জাতীয় পরিচয় পত্র
২. ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের দলিলপত্রাদি
৩. ব্যবসার অন্যান্য তথ্য

গাড়ি ইন্সুরেন্সর জন্য লোন

ইসলামী ব্যাংক থেকে গাড়ি ইন্সুরেন্স এর জন্য লোন নিলে সেটা চার থেকে পাঁচ বছরের মধ্যেই পরিশোধ করতে হবে।

পুরাতন গাড়ির জন্য ২০ লক্ষ টাকা যা চার বছরে পরিশোধ করিতে হবে।  আর নতুন গাড়ির জন্য ৩০ লক্ষ টাকা লোন নিতে পারবেন। যা পাঁচ বছরে পরিশোধ করিতে হবে।

আশা করি আপনাদেরকে ইসলামী ব্যাংক থেকে লোন নেওয়ার পদ্ধতি সম্পর্কে আমি বুঝাতে পেরেছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *